Main Menu

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সংঘর্ষে মাদ্রাসা ছাত্র নিহত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সংঘর্ষের ঘটনায় মাসুদুর রহমান নামে এক কিশোর নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে তার মৃত্যু হয়। নিহত মাসুদুর রহমান ভাদুঘরের বাসিন্দা হাফেজ ইলিয়াস মিয়ার ছেলে। সে জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার ৮ম শ্রণির ছাত্র। তার লাশ জেলা সদর হাসপাতালে রাখা আছে।

এদিকে শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর আবারও ভাংচুর-সড়ক অবরোধ হয়েছে, শহরে মোতায়েন করা হয়েছে বিজিবি।
মঙ্গলবার ভোরে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাফেজ মাসুদুর রহমান (২০) নামের ওই মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু হয়।

সোমবার রাতে সংঘর্ষের সময় মাসুদকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। ভোর রাতে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মাইনুল হক উপল বলেন, “মাসুদের বুকের বাঁ পাশে ও পেটের নিচে বাঁ দিকে আঘাতের চিহ্ন ছিল।”

মাসুদের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে সকালে মাদ্রাসা শিক্ষার্ধীরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে। কয়েকশ ছাত্র শহরের টিএ রোড, কুমারশীলের মোড়, লোকনাথ ট্যাংকের পাড়সহ কয়েকটি স্থানে রাস্তা আটকে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায়।
এ সময় তারা সড়কের উপর কয়েকটি তোরণও ভাংচুর করে। পুরো শহরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এই পরিস্থিতিতে সকাল ৮টার দিকে শহরে বিজিবি মোতায়েন করে স্থানীয় প্রশাসন।

১২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল নজরুল ইসলাম বলেন, শহরের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে দুই প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার এএসপি তাপস রঞ্জন ঘোষ বলেন, “শহরে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করছি।” একজন মাদ্রাসাছাত্র মারা গেছে। তবে কিভাবে তিনি মারা গেছেন তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তা ছাড়া নিহতের শরীরে কোনো আঘাতের চিহৃ নেই।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.