Main Menu

মানুষ পোড়ানোর দায়ে খালেদার বিচার হওয়া উচিত— প্রধানমন্ত্রী

আন্দোলনের নামে মানুষ,গাড়ী পোড়ানোর,জনগনের জিনিসপত্র ভাংচুর করার অপরাধে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ক্ষমা নেই বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
আজ দুপুরে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, তিনি চেয়েছিলেন (খালেদা জিয়া) মানুষ পুড়িয়ে সরকার উৎখাত করবেন । কিন্তু পারলেন না। পরে ঠিকই ব্যর্থতার গ্লানি নিয়ে তিনি কোর্টে হাজিরা দিতে গেলেন। বিএনপি-জামায়াত জোট এক হয়ে মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে, নির্বাচনের সময়ও মানুষ পুড়িয়েছে তারা। মানুষ পোড়ানোর দায়ে খালেদার বিচার হওয়া উচিত। য্দ্ধুাপরাধীদের বাঁচানোর জন্য তিনি চেষ্টা করে যাচ্ছেন। ১৯৭১ সালে যুদ্ধাপরাধীরা যে অপরাধ করেছিল, একই অপরাধ ২০১৫ সালে বিএনপি করেছে। তারা জ্বালাও পোড়াও করে মানুষ হত্যা করেছে। এ কারণে পৌর নির্বাচনে জনগণ তাদের ভোট দেয়নি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ল্যাপটপ ও মাল্টিমিডিয়া বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
এর আগে বেলা ১১টা ৫১ মিনিটে টুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজার জিয়ারত করেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন। এর আগে টুঙ্গীপাড়ায় শেখ রাসেল পৌর শিশু পার্কের উদ্বোধন করেন তিনি। তার সঙ্গে ছিলেন ছোট বোন শেখ রেহানা, সংসদ সদস্য ও দলের সিনিয়র নেতা লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মো. আব্দুল্লাহ প্রমুখ।

Share Button





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.