Main Menu

শিক্ষার জন্য সর্বশ্রেষ্ঠ বিনিয়োগ —–মতিয়া চৌধুরী

গাজীপুর প্রতিনিধি
কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে বই বিতরণ সরকারের সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ। ্এতে টাকার অপচয় হচ্ছে না। কৃষিমন্ত্রী বলেন, বিদ্যালয় আলো দেয়, আলো জ্বালায়, সেই আলোতে কেউ পুড়ে না বরং সেই আলোতে মানুষ উজ্জ্বল হয়। শুক্রবার দুপুরে গাজীপুর সদর উপজেলার ভাওয়াল মির্জাপুর হাজী জমির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কৃষিমন্ত্রী বলেন, সরকার ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে বই বিতরণ করছে। একজন শিক্ষার্থী নতুন বই পাওয়ার পর তার শিক্ষা গ্রহণে যে আগ্রহ তৈরি হয়, তাতে বই বিতরণ সরকারের অপচয় নয়, শিক্ষার জন্য সর্বশ্রেষ্ঠ বিনিয়োগ। তিনি আরো বলেন, ২০০৯ এ সরকার গঠনের পর ২০১০ এ আমরা বই দিলাম। সে সময় বিজি প্রেসে বই ছাপার কাগজে আগুন দেয়া হল। ঢাকার আশপাশের যত দমকল বাহিনী ছিল তাদের দিয়ে আগুন নেভাতে ৩ দিন লেগেছিল। তারপরও ১ জানুয়ারি সমস্ত শিক্ষার্থীর হাতে নতুন বই তুলে দিয়েছিলাম।
মন্ত্রী বলেন, সেদিন একটি কাগজে পড়লাম প্রতি বছর নতুন বই দিয়ে কি টাকার অপচয় হচ্ছে না? এমন তীর্যক প্রশ্ন রেখেছেন এক বিজ্ঞজন। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, তাকে আমি বলব, গ্রামে যান, নতুন বই নিয়ে একটি ছাত্র যখন গন্ধ শুকে এবং তার মুখে যে তৃপ্তিটা থাকে, পড়ার জন্য যে আকাঙ্খাটা জন্মে একবার গিয়ে দেখে আসেন। তাহলেই বুঝবেন এটা অপচয় নয়, এটা বিনিয়োগ, শিক্ষার জন্য সর্বশ্রেষ্ঠ বিনিয়োগ। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল বাংলার মানুষ যেন ক্ষুধায় অন্ন পায়, পরনে বস্ত্র পায়, রোগে চিকিৎসা পায়, মাথা গুজার ঠাঁই পায়। একই সঙ্গে শিক্ষার আলোয় আলোকিত হয়। আমাদের প্রধানমন্ত্রী পিতার সেই অসমাপ্ত স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করার জন্য শিক্ষার ওপর যে গুরুত্ব দিয়েছেন এই গুরুত্ব ইতোপূর্বে কেউই দেয়নি। এটি আমরা বিনয়ের সঙ্গে দাবি করছি।
মন্ত্রী প্রশ্ন করেন, ‘পৃথিবীর কয়টা দেশে এইভাবে দশম শ্রেণি পর্যন্ত বিনা পয়সায় বই দেয় ? এত সীমিত সম্পদ নিয়েও বই দেওয়া এটা যে কি দূরহ দায়িত্ব।’
বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. মহসীন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোজাম্মেল হক খান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ কামাল, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম আলম, পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অনিল চন্দ্র সরকার, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন দুলাল, আওয়ামীলীগ নেতা আতাউল্লাহ মন্ডল, শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.