Main Menu

গাজীপুরে এনজিও’র ঋণের জামিনদার না হওয়ায় শিশু সোলায়মানকে হত্যা

গাজীপুর প্রতিনিধি

গাজীপুরে সেলুন মালিকের এনজিও’র ঋণের টাকার জামিনদার না হওয়ায় ভাঙ্গারি ব্যবসায়ি মোকাররম হোসেনের শিশুপুত্র সোলায়মানকে হত্যা করেছে ‘ঈশিতা হেয়ার কাটিং’ সেলুন মালিক রবি দাস।

মঙ্গলবার রাতে র‌্যাব-১ এর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, গাজীপুর মহানগরের আউটপাড়া এলাকার ‘ঈশিতা হেয়ার কাটিং’ সেলুনের মালিক রবি দাস কিছুদিন আগে একটি এনজিও থেকে ঋণ নিতে গিয়ে ভাঙ্গারি ব্যবসায়ি মোকাররমকে ঋণের জামিনদার হতে অনুরোধ করেছিল। কিন্তু তিনি জামিনদার না হওয়ায় তার ঋণ পেতে অসুবিদা হয়। এতে সেলুন মালিক প্রচন্ড ক্ষিপ্ত হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গত শনিবার বিকালে মোকারমের শিশুপুত্র সোলায়মান তার সেলুনে এলে সে সাটার বন্ধ করে দেয় এবং শিশুটিকে গলা টিপে হত্যা করে। এরপর লাশ পুরোনো কাপড় দিয়ে পেচিয়ে বাজারের ব্যাগে ঢুকিয়ে রিক্সাযোগে কোনাবাড়ি যায়। এরপর রিক্সা বদল করে আরেকটি রিক্সায় উঠে কাশিমপুর এলাকার সুরাবাড়ি ডিবিএল গ্রুপের নির্মানাধীন কারখানার নিকট বাঁশ ঝাড়ের ভিতর ফেলে দিয়ে চলে আসে। সোলায়মানের হত্যাকারীকে ধরার জন্য ব্যাপক কার্যক্রম শুরু করে র‌্যাব। মঙ্গলবার ভোরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিউল ইসলামের নেতৃত্বে একটি বিশেষ দল অভিযান চালিয়ে আউটপাড়া এলাকার ঈশিতা হেয়ার কাটিং সেলুনের মালিক নরসুন্দর নির্মল রবি দাসকে গ্রেফতার করে। সে জিজ্ঞাসাবাদে সোলায়মানকে অপহরণ ও হত্যার কথা স্বীকার করে। রবি দাস নেত্রকোনার রাম চরন দাসের ছেলে এবং গাজীপুর মহানগরের আউটপাড়া এলাকার ‘ঈশিতা হেয়ার কাটিং’ সেলুনের মালিক।

গত সোমবার সন্ধ্যায় মহানগরের সুরাবাড়ি এলাকার বাঁশ ঝাড় হতে শিশুর লাশ উদ্ধার করে জয়দেবপুর থানা পুলিশ। রাতেই শিশুর স্বজনরা গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ মর্গে শিশু সোলাইমানের লাশ শনাক্ত করেন।

উল্লেখ, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের চান্দনা চৌরাস্তা আউটপাড়া এলাকার ভাঙ্গারি ব্যবসায়ি মোকাররমের একমাত্র ছেলে সোলায়মান গত শনিবার বিকেলে দোকানের উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। পরে তিনি বিভিন্ন জায়গায় খোজাখুজি করেন। ওই রাতে তার মোবাইলে অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যক্তি ফোন করে দেড় লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। মুক্তিপণ না দিলে তার শিশুকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি প্রদান করে। পরে এ ব্যাপারে শিশুর পিতা জয়দেবপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি এবং র‌্যাব-১, উত্তরা, ঢাকায় একটি অভিযোগ করেন। নিহত সোলাইমানের পিতা জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানার ভেনুয়ারচর এলাকার মোকারম হোসেন। মোকাররম হোসেন গাজীপুর মহানগরের চান্দনা চৌরাস্তা আউটপাড়া এলাকার আব্দুল মোতালেবের বাড়িতে ভাড়া থেকে ভাঙ্গারি মালামালের ব্যবসা করেন।






Related News

Comments are Closed