Main Menu

জনগণকে কর্তৃত্ব ও ক্ষমতা দিতে হবে—-পরিকল্পনামন্ত্রী

পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, ‘সরকারি ক্রয় কার্যক্রমে জনগণকে সম্পৃক্ত করা, জনগণের মাধ্যমে পর্যবেক্ষনের ব্যবস্থা করা আজ সময়ের দাবি। কারণ জনগণের অর্থে সরকারি ক্রয় কার্যক্রম পরিচালিত হয়। জনগণকে কর্তৃত্ব ও ক্ষমতা দিতে হবে এবং তাদের দায়িত্বশীল করতে হবে। জনগণের অর্থের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে এবং ব্যত্যয় ঘটলে শাস্তি ব্যবস্থা করতে হবে।’

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) বাস্তবায়নাধীন পাবলিক প্রকিউরমেন্ট রিফর্ম প্রজেক্ট (পিপিআরপি) ২-এর অংশ হিসেবে সরকারি ক্রয় ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন এবং সরকারি ক্রয়ে নাগরিক সম্পৃক্ততা সৃষ্টির লক্ষ্যে সুশীল সমাজ, উন্নয়ন সংগঠন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যবসায়ী, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান, গণমাধ্যমের প্রতিনিধি এবং শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে পাবলিক-প্রাইভেট স্টেকহোল্ডারস্ কমিটি (পিপিএসসি) গঠিত হয়। বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত কমিটির নবম সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী প্রধান অতিধির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

সভায় বিশ্বব্যাংকের ক্রয় বিশেষজ্ঞ ড. জাফরুল ইসলাম, বিআইজিডির নির্বাহী পরিচালক ড. সুলতান হাফিজ রহমান, আইএমইডির সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আব্দুল মালেক, পরিকল্পনা সচিব তারিক-উল-ইসলাম, সিপিটিইউ এর মহাপরিচালক মো. ফারুক হোসেন, ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি জামাল উদ্দীনসহ এলজিইডি, ওয়াসা, পানি উন্নয়ন বোর্ড, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ প্রতিনিধিরা বক্তব্য রাখেন। এর আগে পরিকল্পনামন্ত্রী প্রকল্পের মুখপত্র পাবলিক প্রকিউরমেন্ট ওয়াচ শীর্ষক নিউজলেটারের মোড়ক উন্মোচন করেন।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published.