Main Menu

বেশ গোছানো ও আকর্ষণীয় বইমেলার স্টল আর প্যাভিলিয়ন

অমর একুশে বইমেলার সোহরাওয়ার্দী অংশে আবিষ্কার প্রকাশনীর সামনে বেতের খাঁচায় বন্দি এক পাখি। লাল ঠোঁট আর হলুদ পায়ের পাখিটি তাকিয়ে আছে মেলায় আসা লোকজনের দিকে। শোলার তৈরি পাখিটির খাঁচার নিচে লেখা, ‘আমিও পড়তে চাই।’ অভিনব এই চিত্র স্টলটির সাজসজ্জায় আলাদা মাত্রা দিয়েছে। দৃষ্টি কাড়ছে মেলায় আগতদের। সাজসজ্জার গুণে এমন আরো বেশ কিছু স্টল ও প্যাভিলিয়ন এবারের মেলাকে নান্দনিক করে তুলেছে। ১৫টি প্যাভিলিয়নসহ ৩৭৬টি স্টলের মধ্যে ২৭৬টি স্টলই রয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। আর সৌন্দর্যের বিচারে এদিকের স্টলগুলোকেই সেরা বলছে ক্রেতা-দর্শনার্থীরা।

মেলা ঘুরে দেখা যায়, শিশুদের আগ্রহের শীর্ষে থাকা সিসিমপুরের স্টলটি ইতিমধ্যে দৃষ্টি কেড়েছে সবার। এ ছাড়া ৬০৯ নম্বর স্টল টোনাটুনি প্রশংসিত হয়েছে। এ ছাড়া অন্যপ্রকাশ, অনুপম, কাকলী, তাম্রলিপি, আফসার ব্রাদার্স সেজেছে জননন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ও মুহম্মদ জাফর ইকবালের ছবি-পোস্টারে। শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীন চত্বরের কাছে ৮ নম্বর প্যাভিলিয়নে ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেডের স্টলটি সাজানো হয়েছে বিশিষ্টজনদের ছবি দিয়ে। এ ছাড়া মাওলা ব্রাদার্স, অনন্যা, পাঠক সমাবেশের স্টল ও প্যাভিলিয়ন বেশ গোছানো ও আকর্ষণীয়। রূপ প্রকাশনের স্টলটিতে রয়েছে লাল রং আর দৃষ্টি মনোরম আলোর ব্যবহার।

গতকাল বিকেলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমির দুই অংশেই ছিল ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভিড়। বিকেল সাড়ে ৪টায় নজরুল মঞ্চে অনন্যা থেকে প্রকাশিত গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীর সম্পাদিত ‘মুক্তিযুদ্ধের বিদেশি বন্ধুরা’ বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

এ ছাড়া নজরুল মঞ্চে মোড়ক উন্মোচন করা হয় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের প্রয়াত সন্তান আমান মওদুদের চিত্রকর্ম ও জীবনী নিয়ে সংকলন গ্রন্থ ‘ইন লাভিং মেমোরি অব আমান মওদুদ : হিজ লাইফ অ্যান্ড আর্ট’। মোড়ক উন্মোচন করেন বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী মনিরুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মওদুদ আহমদ ও তাঁর স্ত্রী হাসনা মওদুদ। বইটি প্রকাশ করেছে পলাশ প্রকাশনী।

ছেলের স্মৃতিচারণা করতে গিয়ে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমার ছেলে বুদ্ধিবৃত্তিক বিবেচনায় সবার কাছে প্রতিবন্ধী ছিল। কিন্তু প্রতিনিয়ত সে তার ভাবনার প্রকাশ করেছে চিত্রের মাধ্যমে।’

বাংলা একাডেমির তথ্য মতে, গতকাল মেলায় প্রকাশিত হয়েছে ১১০টি নতুন বই। এর মধ্যে চারটি বইয়ের তথ্য-পরিচিতি তুলে ধরা হলো।

সেরা দশ গল্প : বরেণ্য কথাসাহিত্যিক শওকত আলীর সেরা ১০টি গল্প নিয়ে এ বই। ষাটের দশক থেকেই ছোটগল্পকার হিসেবে পরিচিত হয়ে ওঠেন তিনি। কথাসাহিত্যের প্রচলিত ধারা তো বটেই, নিজের লেখাকেও বারবার নতুন পরীক্ষার সামনে দাঁড় করিয়েছেন। সময়ের সঙ্গে যেমন সমাজের সদর-অন্দর, মানুষের ভেতর-বাহির পাল্টেছে; তেমনি পাল্টেছে তাঁর গল্পও। ভাষাভঙ্গিমা, শৈলী পরিবর্তন হলেও শওকত আলীর সমাজ বদলের চিন্তা ও মনন অপরিবর্তিত। সমাজ, রাষ্ট্র, মানুষের স্বপ্ন ও স্বপ্নভঙ্গের বেদনা নতুন আর্তি নিয়ে প্রকাশিত হয়েছে তাঁর গল্পে। বইটি প্রকাশ করেছে অন্যপ্রকাশ। দাম ৩৫০ টাকা।

চীনে আমরা পাঁচজন : বাংলাদেশের সাহিত্যের ইতিহাসে পঞ্চাশের দশক থেকে হাতে গোনা যে কয়জন সৃজনশীল মানুষ এ দেশের সাহিত্যকে মহিমান্বিত করে তুলেছেন এবং মধ্যবিত্তের গণ্ডি ছেড়ে বৃহত্তর মানুষের জীবনযুদ্ধ নিয়ে এক মহান মানবিকতার সৌধ রচনা করেছেন, সৈয়দ শামসুল হক তাঁদের মধ্যে অন্যতম। নতুন ভাষা ও শৈলী নির্মাণের প্রবণতা তাঁর অন্যতম বৈশিষ্ট্য। হোক কবিতা, গল্প কিংবা উপন্যাস—তাঁর এ গুণ সর্বত্র লক্ষণীয়। তাঁর রচিত ‘চীনে আমরা পাঁচজন’ বইটি ভ্রমণের। নতুন দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে তিনি অবলোকন করেছেন চীনের সমাজ, সংস্কৃতি ও মানুষকে। সব্যসাচী এ লেখকের বইটিতে ভিন্ন স্বাদের ভিন্ন ভুবনের ভিন্ন জগতের মানুষের স্বপ্ন-আকাঙ্ক্ষা ও ভিন্ন দেশের মানুষের জীবনকৃতি নবমাত্রা পেয়েছে। এটি প্রকাশ করেছে কথাপ্রকাশ। প্রচ্ছদ করেছেন সব্যসাচী হাজরা। দাম ১৫০ টাকা।

হে চন্দনা পাখি : শিশুসাহিত্য দিয়ে লেখালেখি শুরু করলেও বিশ্বজিৎ চৌধুরীর সৃজনীর প্রকাশ ঘটেছে সাহিত্যের নানা শাখা-প্রশাখায়। কবিতা, গল্প, উপন্যাস, নাটকসহ নানা মাধ্যমে কাজ করে অর্জন করেছেন মনস্বী পাঠকের ভালোবাসা। এবার মেলায় প্রকাশিত হয়েছে তাঁর উপন্যাস ‘হে চন্দনা পাখি’। বইটিতে ভিন্ন আঙ্গিকে উঠে এসেছে প্রেম ও বেদনার মানবিক আখ্যান। প্রকাশ করেছে প্রথমা। প্রচ্ছদ মাসুক হেলাল। দাম ২০০ টাকা।

আবরার শিশির এবং জয়িতা : উপন্যাসটির লেখক মোস্তফা মামুন। জনপ্রিয় ক্রীড়া সাংবাদিক ও লেখক। বিশ্ববিদ্যালয়ে আইনে লেখাপড়া করলেও জীবনযাপনের অবলম্বন হিসেবে বেছে নেন সৃজনশীল লেখালেখি। গল্প, উপন্যাস, শিশুসাহিত্যসহ সাহিত্যের নানা শাখায় কাজ করছেন দীর্ঘদিন ধরে। এবার মেলায় প্রকাশিত হয়েছে তাঁর ভিন্ন আঙ্গিকের এই প্রেমের উপন্যাস। জনপ্রিয় লেখক মোস্তফা মামুনের এই উপন্যাসে সুখ-দুঃখ, আশা-নিরাশা, প্রাপ্তি-বঞ্চনা খুব অন্তরঙ্গ হয়ে ধরা দিয়েছে। একই সঙ্গে প্রতিদিনের দ্বন্দ্ব-বিচ্ছিন্নতা এবং তা পেছনে ফেলে এগিয়ে যাওয়ার উদ্দীপনাও আছে গল্পের পরতে পরতে। বইটি প্রকাশ করেছে অন্বেষা। প্রচ্ছদ সোহেল আনাম। বইটির দাম ১৬০ টাকা।

অন্যান্য নতুন বই : গতকাল মেলায় আসা নতুন বইয়ের মধ্যে রয়েছে—গল্প ২০, উপন্যাস ১৫, প্রবন্ধ ৮, কবিতা ২৮, শিশুসাহিত্য ৩, ছড়া ৫, জীবনী ৪, মুক্তিযুদ্ধ ১, নাটক ১, বিজ্ঞান ৫, ভ্রমণ ১, ইতিহাস ৩, স্বাস্থ্য ১, রম্য/ধাঁধা ১, অনুবাদ ১, সায়েন্স ফিকশন ৩ ও অন্যান্য ১০টি বই।

উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে রয়েছে—ঐতিহ্য থেকে প্রকাশিত বুলবুল সরওয়ারের ‘হূদয়ে আমার মির্জা গালিব’, ফেরদৌস হাসানের ‘মায়া’ (অন্যপ্রকাশ), অসীম সাহার ‘শ্মশান ঘাটের মাঝি’ (চন্দ্রদ্বীপ), মুস্তাফা জামান আব্বাসীর ‘আব্বাস উদ্দীন : মানুষ ও শিল্পী’ (অনন্যা), বিচারপতি মো. গোলাম রব্বানীর ‘বাংলাদেশের সংবিধানের বিকাশ, বৈশিষ্ট্য ও বিচ্যুতি’ (ঐতিহ্য), রাজু আলাউদ্দিন অনূদিত ‘কথাসমগ্র’ (কথাপ্রকাশ), লুত্ফর রহমান রিটনের ‘রসগোল্লাটা কথা বলে’ (গোল্ডেন বুকস), খালিদ মারুফের ইস্রাফিলের প্রস্থান (দাঁড়কাক) ইত্যাদি।

মূল মঞ্চের আয়োজন : গতকাল বিকেলে মেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘বাংলাদেশের প্রকাশনা কার্যক্রম : অতীত থেকে বর্তমান’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আহমাদ মাযহার। আলোচনায় অংশ নেন শিল্পী রফিকুন নবী, কবি তারিক সুজাত, লেখক রেজানুর রহমান এবং পশ্চিমবঙ্গের লেখক-গবেষক ইমানুল হক। সভাপতিত্ব করেন শিল্পী হাশেম খান। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ছিল সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠীর শিল্পীদের পরিবেশনা। সংগীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী নাদিরা বেগম, দিলরুবা খান, আজগর আলীম, মো. নূরুল ইসলাম প্রমুখ।

আজ বুধবার বিকেল ৪টায় মেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘বাংলাদেশে শিশুসাহিত্য চর্চা : অতীত থেকে বর্তমান’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান।






Related News

Comments are Closed