Main Menu

যেসব কারণে অল্প বয়সে চুল পড়ছে

ক্লান্তি, অবসাদ, শরীরচর্চা না করা, চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই ওষুধ খাওয়া ইত্যাদি নানা কারণে খুব কম বয়সেই মাথা টাক হয়ে যায়। যদি গোসল করতে গিয়ে বা আঁচড়ানোর সময় দেখেন, বেশিমাত্রায় চুল উঠছে তবে দ্রুত সাবধান হোন। এখন থেকেই যত্ন না নিলে কিন্তু মাথার চুল পড়ে টাক হতে বেশি সময় লাগবে না।

সঠিক কারণ জানা থাকলে তবেই আপনি চুল পড়ার সমস্যা থেকে দুরে থাকতে পারবেন। জেনে নিন কী কারণে কমবয়সে চুল পড়ে যাচ্ছে।

ক্লান্তি :
ক্লান্তি ধীরে ধীরে আমাদের শরীরের নানা ক্ষতি করে। চুল পড়াতেও অনুঘটক হিসাবে কাজ করে শারীরিক ও মানসিক ক্লান্তি।

মাতৃত্ব :
মাতৃত্বের কারণে বহু মহিলাই চুল পড়ার সমস্যায় ভোগেন। যদিও বেশিরভাগ মায়েদের ক্ষেত্রেই সন্তান জন্মের তিনমাস পর ফের চুল ওঠে মাথায়। তবে কারো কারো সমস্যা হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া উচিত।

ভিটামিন এ-র অভাব :
শরীরে ভিটামিন ‘এ’র অভাব হলে তা সবচেয়ে বেশি বোঝা যায় যখন মাথার চুল ঝরতে শুরু করে।

প্রোটিনের অভাব :
নানা ধরনের প্রোটিন আপনার শরীরকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। শরীরে প্রোটিনের অভাব হলেই চুল পড়ার সমস্যা হয়।

হরমোনের কারণে :
অনেকের হরমোনজনিত কারণে কমবয়সে চুল পড়ে যায়।

অ্যানিমিয়া :
শরীরে আয়রনের অভাব হলে নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা হয়। চুল পড়া ছাড়াও চামড়া খসখসে হওয়া, ঔজ্জ্বলতা হারানো, দুর্বলতা, মাথাধরা ইত্যাদির সমস্যা হয়।

ভিটামিন বি :
ভিটামিন বি-র অভাবেও চুল পড়তে পারে। শরীরে ভিটামিনের খামতি ঢাকতে ডিম, শাক-সবজি ও মাছ খেতে হবে প্রচুর পরিমাণে।

মেডিসিন :
চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খাওয়ার অভ্যাস করলে, ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় চুল পড়ে যায়।

ওজন কমে যাওয়া :
বেশিমাত্রায় শরীরচর্চা ও ডায়েট কন্ট্রোল করাও চুল পড়ার অন্যতম কারণ।






Related News

Comments are Closed