Main Menu

গাজীপুরে ব্যাংক কর্মকর্তা খুনিদের ফাঁসি চেয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয় সম্মুখে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

ফজলুল হক বাদল : সোনালী ব্যাংক, গাজীপুর শাখার কর্মকর্তা মোঃ গিয়াস উদ্দিন গাজীপুর শহরের বরুদাতে নিজ বাসায় খুন হওয়ায় হত্যা রহস্য উদ্যাটন পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক বিচার, খুিনদের ফাঁসি চেয়ে বরুদাবাসী গাজীপুর জেলা প্রশাসককের কার্যালয় সম্মুখে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছেন।

মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় খুনীদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন।

মামলার বাদী তার এজাহারে উল্লেখ করেন- নিহত গিয়াস উদ্দিনের স্ত্রী মোসাঃ জাহানারা বেগম (৫৮) ছিলেন- খারাপ চরিত্রের মহিলা। তিনি পরকিয়া প্রেমে আসক্ত হয়ে স্বামী গিয়াস উদ্দিনের পেনশনের টাকাসহ জমি-জমা ও ঘর-বাড়ি নিজের নামে লিখিয়ে নেয়ার জন্য গিয়াস উদ্দিনকে প্রায় সময়ই চাপাচাপি করতো। এমনকি গিয়াস উদ্দিনের সাথে খারাপ আচরণ করতো। এতে গিয়াস উদ্দিন বাধা নিষেধ করলে, তারা গিয়াস উদ্দিনকে হত্যা করবে মর্মে হুমকী দেয়।

মামলার বাদী এজাহারে আরো উল্লেখ করেন যে, গিয়াস উদ্দিনের বখাটে ছেলে শাহরিয়ার শুভ ওরফে মানিক (২৮), শ্যালক আক্তার হোসেন দিপু, শ্যালিকা পারভীন আক্তার (৫০), মেয়ে সোহেলী নাজনীন লাবনী (৩৮)গন প্রায় দিনই গিয়াস উদ্দিনকে মারপিটসহ নানা অত্যাচার নির্যাতন করতেন।

মামলার বাদীর মতে মৃত্যুর পূর্ব মুহুর্তে গিয়াস উদ্দিন ১৮/০৩/২০১৬ইং তারিখ রোজ শুক্রবার দিবগত রাত সাড়ে ৮ টার দিকে ছেলে, মেয়ে ও লোকজন তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মারাপিট করছেন মর্মে জনৈক এড. শাহ আলম ও বাদীর স্ত্রী ফারজানার মোবাইলে ফোন করে জানান। এতে বাদী বশির আহম্মেদ ভাই গিয়াস উদ্দিনের বাড়ির উদ্দেশে রওয়ানা হয়ে পথিমধ্যে জানতে পারেন, গিয়াস উদ্দিনকে মৃত অবস্থায় তার ছেলে মানিক হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছে। রাত অনুমান ১১.৪৫টার সময় তারা হাসপাতালে গিয়ে গিয়াস উদ্দিনের নিথর মৃত দেহ দেখতে পান। ওই সময় বাদী তার ভাই গিয়াসের শরীরে থুতনীতে ও ডান হাতের কবজীতে ফুলা জখম এবং ঘাড়ের নীচে অতি সুক্ষè সুই ঢুকানোর ছিদ্রযুক্ত জখম প্রত্যক্ষ করেন। ওই জখম থেকে রক্ত ঝড়ছিলো। ফলে বাদী বলেন, তার ভাইকে মারপিট করতো শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এই প্রতিবেদক বিভিন্ন লোকজনের সাথে কথা বলে জানতে পারেন যে, ওই দিন রাতে গিয়াসকে টর্সার করার সময় তিনি বাসা থেকে বাহিরে বেড়িয়ে আসেন এবং রাস্তায় দৌড়ে দৌড়ে বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার ও ছুটোছুটি করছিলেন। ওই সময় নিহত গিয়াসের স্ত্রী জাহানারা ও সঙ্গীয়রা তাকে টানা হেচড়া করে পূনরায় বাসায় নিয়ে যান।






Related News

Comments are Closed