Main Menu

নিখোঁজ চার মাদ্রাসাছাত্র উদ্ধার

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ থেকে নিখোঁজ চার মাদ্রাসাছাত্রকে উদ্ধার করা হয়েছে। এদের মধ্যে সোহানুর রহমানকে(১১) সিলেট থেকে এবং বাকি তিনজনকে হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গ উপজেলা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

রোববার সকালে সিলেট থেকে সোহানুর রহমানকে উদ্ধার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক।

এর আগে শনিবার রাত ৯টার দিকে নিখোঁজ নয়নের ফুফুর বাড়ি বানিয়াচঙ্গ উপজেলার বালিখাল গ্রাম থেকে অন্য তিন মাদ্রাসা ছাত্রকে উদ্ধার করেছিল পুলিশ। এরা হলো- বাহুবল উপজেলা খেলাফত মজলিসের সেক্রেটারি চারগাঁও গ্রামের আহমদ রশিদ মনু মিয়ার ছেলে তানভীর রশিদ রাফি (১৩), তার ভাগ্নে একই উপজেলার আব্দানারায়ন গ্রামের আব্দুল আহাদের ছেলে ইমতিয়াজ আহমেদ(১২) ও নবীগঞ্জ উপজেলার সুজাপুর গ্রামের আব্দুল্লাহর ছেলে আজহারুল ইসলাম নয়ন (১২)।

এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক জানান, একসঙ্গে নিখোঁজ হওয়া চার ছাত্রের মধ্যে তিনজনকে বানিয়াচঙ্গ, আর একজনকে সিলেট উদ্ধার করা হলো।

উল্লেখ্য, শায়েস্তাগঞ্জের সুতাং বাজার এলাকার বাছিরগঞ্জ পূর্ব নোয়াগাঁও হাজী সুরুজ আলী হাফিজিয়া মাদ্রাসার চার ছাত্র তানভীর রশিদ রাফি, ইমতিয়াজ আহমেদ, সোহানুর রহমান ও আজহারুল ইসলাম নয়ন শুক্রবার থেকে নিখোঁজ ছিল। পাঞ্জাবি বানানোর কথা বলে শুক্রবার বিকেলে চার ছাত্র মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে শায়েস্তাগঞ্জ যায়। এরপর থেকে তাদের আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। এ ঘটনায় রাফির বাবা আহমদ রশিদ মনু শনিবার শায়েস্তাগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

উল্লেখ্য, গত ১২ ফেব্রুয়ারি বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকি গ্রামের চার শিশু অপহৃত হয়। এর পাঁচ দিন পর ওই গ্রাম থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে ইছাবিল নামক স্থানে বালুর গর্তে মাটিচাপা অবস্থায় ওই শিশুদের মৃতদেহ উদ্ধার করেছিল পুলিশ।






Related News

Comments are Closed