Main Menu

রাতে ঘুমান আরামে

চোখ মটকে আর কত রাত পড়ে থাকা যায়। ঘুম যদি ঠিক মতো না আসে তবে সারাদিনই এর প্রভাব থেকে যায়। কাজের ক্ষেত্রে ঝিমুনি আসবে, ক্লান্তি লাগবে। তাই পরিমিত ঘুম সব মানুষের জন্য প্রয়োজন। আপনার ঘুমে সমস্যা? কয়েকটি খাবারের কথা মনে রাখুন।

ঘুমুনোর আগে সময় নিয়ে খান খাবারগুলো যেটেই পান হাতের কাছে, দেখবেন শিশুদের মতো আরামের ঘুম নেমে আসবে আপনার চোখে। ইনসোমনিয়া বা অনিদ্রা আর আপনার কাছেই ঘেঁষতে পারবে না।

ডাবের পানি : এখন তো ডাবের পানি বোতলজাত করা হয়। তবে দেখে নিতে হবে ডাবির পানিতে অতিরিক্ত চিনি, প্রিজারভিটিভ অথবা খাবার রং যোগ করা হয়েছে কি না। যদি না হয়ে থাকে তবে জেনে রাখুন ডাবের এক চুমুক পানি আপনার শরীরের জন্য ভীষণ উপকারী। শোবার আগে পারলে কলা চটকে তার সঙ্গে ডাবের পানি মিশিয়ে খেয়ে ফেলুন।না হলে এমনিতে কয়েক চুমুক ডাবের পানি খেয়ে নিন, দেখবেন কি প্রশান্তি শরীর-মন জুড়ে। ঘুম নেমে আসতে বাধ্য।

গ্রিনটি : গরম পানিতে সামান্য মধু দিয়ে তাতে গ্রিন টি ছেড়ে দিন। তারপর হাতে নিন বই। পাতা উল্টাতে থাকুন আর চায়ে চুমুক দিন। চা শেষ হওয়ার আগেই ঢলে আসবে চোখ।

দুধ : খাবারের আগে গরম দুধ অনেকেই সহ্য করতে পারেন না। পেট ফেঁপে থাকে গরম দুধে। তাতে করে শরীর অস্বস্তির কারণে ঘুম আরো দেরিতে আসে। তবে যদি ঘুমানোর কিছুক্ষণ পর যদি ঠাণ্ডা দুধে চুমুক দেন তবে তা অ্যাসিডিটির সমস্যা কমাতে সাহায্য করবে সেই সাথে ঘুমও নিয়ে আসবে দ্রুত।

ওভালটিন : আমাদের দেশে শিশুখাদ্য হিসেবে ওভালটিন পরিচিত হলেও পাশ্চাত্যের দেশগুলোতে ৪০ উদ্ধোদের সকালের টেবিলে এক গ্লাস ওভালটিন লাগে। খালি বা দুধের সঙ্গে যেভাবে ইচ্ছে মিলিয়ে খেয়ে নিন। তবে তা ঘুমানোর আগে।

কলা : রাতে ঘুমানোর আগে অন্তত একটি কলা খান। কলায় আছে প্রচুর ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়ার আর মিনারেল যা কিনা ঘুমানোর আগে শরীরে এমন প্রশান্তি এনে দেবে যে আপনাআপনি বন্ধ হয়ে আসবে চোখের পাতা।

চেরি : খাদ্য ও পুষ্টিবিদরা দেখেছেন, চেরিতে আছে মেলাটোনিন। যা কিনা ঘুম আনতে সাহায্য করে। তাই ঘুমানোর আগে চটপট মুখে কয়েকটা চেরি ফেলে দিন। ঘুম না এসে পারবেই না।






Related News

Comments are Closed