Main Menu

আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা!

করণ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে সেদিন যদি ঝাঁপ দিতেন তিনি, তাহলে বলিউডি সিনেমার ইতিহাসও হয়ত খানিকটা রঙ ছাড়াত৷ সিনেমার পর্দায় এমন দক্ষতায় কে হয়ে উঠতেন তাহলে মেরি কম! চোখে ভালবাসা আর অভিমান ধরে কে হতেন কাশীবাঈ? হ্যাঁ, প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার কথাই হচ্ছে৷ সম্প্রতি তাঁর প্রাক্তন ম্যানেজার জানিয়েছেন, বেশ কয়েকবার আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছিলেন প্রিয়াঙ্কাও৷

তিনি বলেন, প্রিয়াঙ্কা আজ সাফল্যের শিখরে৷ কিন্তু একদিন তার উল্টোপিঠের অন্ধকারটিও দেখেছেন৷ হতাশার সেইসব দিনে চূড়ান্ত মানসিক অবসাদে ভুগতেন পিগি চপস৷

প্রিয়াঙ্কার প্রাক্তন ম্যানেজার প্রকাশ জাজু পিগির জীবনের এই অকথিত দিকটিকে আলোয় এনেছেন৷ প্রাক্তন প্রেমিকের সঙ্গে প্রিয়াঙ্কার অশান্তির দিনগুলির কথাও তুলে এনেছেন তিনি৷ জানিয়েছেন বেশ কয়েকবার আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছিলেন প্রিয়াঙ্কা। সেই সময় রাতের পর রাত জেগে কাটাতেন প্রিয়াঙ্কা৷ ঝামেলা হত তাঁর প্রেমিক অসীমের সঙ্গে৷

রাত প্রায় দু’টো-তিনটে নাগাদ ফোন আসত জাজুর কাছে৷ তিনি গিয়ে দেখতেন প্রিয়াঙ্কা প্রেমিকের বাড়ির নিচে কান্নাকাটি করছেন৷ সেখান থেকে তিনিই তাঁকে ঘরে ফিরিয়ে আনতেন৷ তাঁর কথাতেই জানা গেছে, প্রাক্তন এই প্রেমিকের মায়ের সঙ্গেও ভীষণ ভাল সম্পর্ক ছিল প্রিয়াঙ্কার৷ কিন্তু ২০০২ সালে তাঁর মৃত্যুতে মারাত্মক ভেঙে পড়েন প্রিয়াঙ্কা৷ এতটাই হতাশ ছিলেন তিনি যে, ফিরে এসে আত্মহত্যা করতে করণ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে ঝাঁপ দেওয়ার চেষ্টা করেন৷ ঘটনাচক্রে সেই সময়ই সেখানে পৌঁছে যান জাজু৷ প্রিয়াঙ্কাকে ওই অবস্থা থেকে তিনিই শান্ত করেন, জীবনে ফিরিয়ে আনেন। এই সব ঘটনা উল্লেখ করে জাজু জানিয়েছেন, প্রিয়াঙ্কাকে বাইরে থেকে এখন যত শক্ত মনের বলে মনে হয়, তখন কিন্তু তেমন ছিলেন না৷

প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে প্রকাশের সম্পর্ক এখন মোটেও ভাল নয়৷ বছর কয়েক আগে প্রিয়াঙ্কা তাঁকে ম্যানেজার পদ থেকে সরিয়ে দেন৷ সম্পর্ক এতটা তিক্ত হয় যে, ঘটনা গড়ায় আদালত পর্যন্ত৷ ২০০৮ সালে প্রিয়াঙ্কার বাবা জাজুর বিরুদ্ধে মেয়ের ব্যক্তিগত জীবনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনে আদালতের দ্বারস্থ হন৷ আরও একবার প্রিয়াঙ্কার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মুখ খুললেন তিনি৷ তাঁর মতে প্রিয়াঙ্কা যখন তাঁকে পাত্তাই দেন না, তখন আর এসব কথা লুকিয়ে কী লাভ!






Related News

Comments are Closed