Main Menu

একিউট রাইনাইটিস

হঠাৎ করে যদি নাকের ভেতর মিউকাস মেমব্রেনে প্রদাহ হয় তাকে একিউট রাইনাইটিস বলে। ভাইরাসের সংক্রমণে এমন হয়। ঋতু পরিবর্তনের সময় এটি বেশি দেখা যায়। নাকের ভেতর মিউকাস মেমব্রেনে যে গ্লান্ড বা গ্রন্থি থাকে একিউট রাইনাইটিসে সেখান থেকে নিঃসরণ হয়।

বিভিন্ন ভাইরাস এর জন্য দায়ী। যেমন-
১। রাইনোভাইরাস ২। ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস ৩। এডেনো ভাইরাস ৪। ইকো ভাইরাস ইত্যাদি
উপসর্গঃ একিউট রাইনাইটিসে বিভিন্ন উপসর্গ থাকে। যেমন-
১। নাক দিয়ে পানি পড়া ২। নাকের ভেতর অস্বস্তি ৩। হাঁচি ৪। জ্বর ৫। নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া ৬। মাথা ব্যথা ৭। কানে অস্বস্তি ৮। আস্তে আস্তে নাকের নিঃসরণ কমতে থাকে এবং পুরু হতে থাকে।

৫-৬ দিনের মধ্যেই এসব উপসর্গ ভাল হয়ে যায়।
যেহেতু একিউট রাইনাইটিস সংক্রামক রোগ তাই এ রোগ হলে বাসায় থাকা উচিত। বাচ্চাদের এ সময় স্কুলে পাঠনো উচিত নয়। তাহলে অন্য বাচ্চাদেরও এমন হতে পারে। পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিতে হবে। জ্বরের জন্য প্যারাসিটামল দেয়া যেতে পারে। এন্টিবায়োটিক খুব কম ক্ষেত্রেই লাগে। ইনফেকশন তীব্র সন্দেহ হলে এন্টিবায়োটিক দেয়া হয়।

এন্টিহিস্টাসিন তেমন উপকার করে না। নাক পরিষ্কার করার জন্য ন্যাজাল ডিকনজেসটেন্ট ব্যবহার করা হয়।
একিউট রাইনাইটিস খুব সাধারণ সমস্যা। তাই এ বিষয়ে জানতে হবে। ঋতু পরিবর্তনের সময় সাবধানে থাকা উচিত। তাহলে অনেকটাই এ রোগ প্রতিরোধ করা যায়।

লেখক: ডা. মো. ফজলুল কবির পাভেল, সহকারি রেজিস্ট্রার, মেডিসিন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ






Related News

Comments are Closed