Main Menu

জ্বালানি তেলের সঙ্গে সিএনজির দাম সমন্বয়ের দাবি

জ্বালানি তেলের সঙ্গে সংকুচিত প্রাকৃতিক গ্যাসের (সিএনজি) দাম সমন্বয় করার দাবি করা হয়েছে। তেলের দাম কমানো হলে আর সিএনজির দাম বাড়ানো হলে সিএনজি ব্যবহারে মানুষের আগ্রহ কমে যাবে। ক্ষতিগ্রস্ত হবে বিনিয়োগ।

মঙ্গলবার রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে (ডিআরইউ) এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সিএনজি ফিলিং স্টেশন অ্যান্ড কনভারসন ওয়ার্কশন ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন এ দাবি জানায়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মাসুদ খান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক ফারহান নূর, মনোরঞ্জন ভট্ট, জহিরুল ইসলাম জয়, নজরুল ইসলাম, একেএম আলমগীর, সফিউদ্দিন, মিজানুর রহমান রতনসহ অন্যরা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আগামী ২৩ এপ্রিল অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে যদি তেলের দাম কমানো হয় তাহলে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবে তারা। নেতারা বলেন, জ্বালানি তেলের দাম কমানো হলে আর সিএনজির দাম একই থাকলে বৈষম্য তৈরি হবে। সিএনজি ব্যবহারে মানুষের আগ্রহ কমে যাবে। গণপরিবহনে নৈরাজ্য তৈরি হবে। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কাছে কোনো সুবিধা পৌঁছাবে না। এছাড়া এই খাতে প্রচুর বিনিয়োগ করা হয়েছে। যদি সিএনজি ব্যবহার কমে যায় তবে বিনিয়োগ ঝুঁকিতে পড়বে।

বর্তমানে ৫৯০টি সিএনজি আছে যেখানে তিন হাজার ৫০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ হয়েছে। এছাড়া দুই হাজার ৫০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করে তিন লাখ গাড়ি সিএনজিতে রূপান্তর করা হয়েছে।
সংবাদ, সম্মেলনে জানানো হয়, বর্তমান পরিস্থিতিতে সিএনজির দাম কমানো উচিত কিন্তু বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। দাম বাড়ানো হলে গণপরিবহনে সিএনজি ব্যবহারে নিরুৎসাহিত হবে। এতে বায়ু দূষণ বাড়বে।






Related News

Comments are Closed