Main Menu

রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়ে দিল উলফসবুর্গ

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে ইউরোপের বিভিন্ন দেশের সেরা দলগুলোই খেলার সুযোগ পায়।

তার উপর কোয়ার্টার ফাইনালের মতো স্টেজে কোনো দলই হেলাফেলার নয়। তারা যে-কাউকে হারিয়ে দেওয়ার সামর্থ্য রাখে। তেমনটাই করে দেখিয়েছে জার্মান ক্লাব উলফসবুর্র্গ।

বুধবার দিবাগত রাতে ঘরের মাঠে উলফসবুর্গ ২-০ ব্যবধানে হারিয়ে দিয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগের দশ-দশবারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদকে। প্রথমার্ধের মাত্র আট মিনিটের ব্যবধানে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় জার্মানির ক্লাবটি। এই ব্যবধান আর কমাতে পারেনি জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে ২-০ ব্যবধানে হেরে বেশ খানিকটা বিপাকে পড়েছে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। শেষচারে যেতে হলে দ্বিতীয় লেগে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে কমপক্ষে ৩-০ ব্যবধানে জিততে হবে। যা ৯০ মিনিটের খেলায় কিছুটা হলেও কষ্টসাধ্য। তারউপর ফিরতি লেগে প্রতিপক্ষের মাঠেও যদি উলফসবুর্গ গোল পেয়ে যায় তাহলে বিপদটা রিয়ালের জন্য আরও কঠিন হতে পারে।

এই ম্যাচের আগে রিয়াল মাদ্রিদের গোলরক্ষক কেইলর নাভাস চ্যাম্পিয়নস লিগে গোল হজম করেননি। আর এদিন কিনা সে-ই দুই-দুটি গোল হজম করে বসলেন। প্রথমে ম্যাচের ১৮ মিনিটে উলফসবুর্গের রিকার্ডো রদ্রিগেজ পেনাল্টি থেকে গোল করেন। অবশ্য এই পেনাল্টি নিয়েও বিতর্ক রয়েছে। এরপর ২৫ মিনিটের মাথায় ম্যাক্সিমিলিয়ান আর্নল্ড ব্যবধান দ্বিগুণ করেন।

অবশ্য যখন ম্যাচের ৭০ সেকেন্ডে রোনালদোকে অফসাইড ধরা হয়, তখনই রিয়াল সমর্থকরা বুঝে নিয়েছিল ম্যাচটি স্প্যানিশ ক্লাবটির জন্য সুবিধার হবে না। এরপর গ্যারেথ বেলকে ডি বক্সের মধ্যে লুইস গুস্তাভো বাজেভাবে ফাউল করলেও রেফারি বিষয়টি আমলেই নেননি। ওটা পেনাল্টি হওয়ার মতো ছিল। তবে প্রতি-আক্রমণে উলফসবুর্গ বেশ ভুগিয়েছে রিয়ালকে। যার কারণে রিয়াল মাদ্রিদের গোলরক্ষক কেইলর নাভাসের ৭৩৮ মিনিট গোল না হজম করার রেকর্ড ভেস্তে যায়। অন্যদিকে করিম বেনজেমা ইনজুরিতে পরায় আরো ব্যাকফুটে চলে যায় রিয়াল। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য বেশ কয়েকটা সুযোগ মিস করেন গ্যারেথ বেল। যার ফলশ্রুতিতে হার এড়াতে পারেনি মাদ্রিদেও ক্লাবটি।






Related News

Comments are Closed