Main Menu

অনলাইন সাংবাদিকতা কি?

অনলাইন সাংবাদিকতা বলতে বোঝায় ইন্টারনেট পত্রিকা বা গণমাধ্যমে সাংবাদিকতা। বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়া এ ব্যাপারে বলা হয়েছে- Online journalism is defined as the reporting of facts produced and distributed via the Internet.
অনলাইন বা ইন্টারনেট ভিত্তক সংবাদপত্র মূলত ওয়েব সংবাদপত্র হিসাবে পরিচিত। এটি এমন এক ধরনের সংবাদপত্র যা ইন্টারনেটকে কেন্দ্রকরে গড়ে ওঠেছে। অনলাইন সংবাদপত্র ট্র্যাডিশনাল সংবাদপত্রের মতো সংবাদের সাথে ফিচার, ছবি, অডিও, ভিডিও প্রকাশ করে এবং যে কেউ লেখা বা মতামত পাঠাতে চাইলে পাঠক সহজেই তার মতামত জানাতে পারেন।
অনলাইন সাংবাদিকতা , মুহুর্তেই সব খবর । সবাই জানতে চান সর্বশেষ খবর। সময় বদলেছে। অনেকেই আজকের খবরের জন্য এখন আর আগামীকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে রাজি নন ।
ঘটে যাওয়া সময়েই চান সর্বশেষ খবর। আর তাই বিস্তৃতি ঘটছে অনলাইন সাংবাদিকতার। এক সময় একটি দৈনিক পত্রিকার জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতেন পাঠকরা ।
সাপ্তাহিক পত্রিকাগুলোও চলত বেশ। কিন্তু এখন দৈনিক পত্রিকাও পুরনো মনে হয়। কারণ, অনলাইন পত্রিকাগুলো প্রতিমুহূর্তেই টাটকা খবর সরবরাহ করছে।
তাই, খবর গরম থাকতেই তা জেনে নিচ্ছে উৎসুক পাঠক। বাংলাদেশেও অনলাইন সংবাদ মাধ্যমের জনপ্রিয়তা বাড়ছে, বাড়ছে অনলাইন পত্রিকার সংখ্যাও।
দিনে দিনে মানুষের ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ ও বাড়ছে। ব্যবহৃত স্মার্ট ফোনেও পাওয়া যাচ্ছে খবর পড়ার সুবিধা। অনলাইন পত্রিকাগুলোর পাঠক বেড়ে যাচ্ছে হু হু করে।

অনলাইন সংবাদপত্রের সৃষ্টি হয়েছে ওয়েব সৃষ্টির পর থেকে। ১৯৯০ দশকের ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব (ডব্লিউ ডব্লিউ ডব্লিউ)-এর জনপ্রিয়তা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নতুর রুপে অনলাইন ম্যাগাজিন প্রকাশিত হতে থাকে। তবে কন্টেন্টগুলো ছিল ট্র্যাডিশনাল ম্যাগাজিনের মতোই; বিজ্ঞাপন, গল্প, ছবি, ফিচার ইত্যাদি। একুশ শতকে এ প্রযুক্তি আরো একধাপ এগিয়ে যায়। শুরু হয় ইলেকট্রনিক নিউজলেটারের প্রচলন। ই-মেইলের মাধ্যমে বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে তথ্য জেনে নিউজলেটারগুলো ইন্টারনেটেই প্রকাশিত হতে থাকে। এভাবেই শুরু হয় অনলাইন সংবাদপত্রের পথচলা।
বর্তমান সময়ে বাংলাদেশসহ পৃথিবীর যে কোন দেশের এমন কোন জাতীয় দৈনিক সংবাদপত্র পাওয়া কঠিন হবে যেটি অনলাইন ভার্সনে আসেনি। বাংলাদেশে এ ক্ষেত্রে প্রথম অগ্রণী ভূমিকা রাথে সাপ্তাহিক (বর্তমানে দৈনিকে রূপান্তরিত) যায়যায়দিন। এটি ১৯৯৭ সালের জানুয়ারি থেকে অনলাইনে বিশ্বের প্রথম বাংলা পত্রিকা হিসেবে আবির্ভূত হয়। বর্তমানে প্রায় সবগুলো পত্রিকারই অনলাইন ভার্সন রয়েছে।
এর পাশাপাশি বর্তমানে তৈরি হয়েছে অনেক অনলাইন সংবাদপত্র যাদের কোন হার্ড কপি নেই। আমাদের দেশে অনলাইন ভিত্তিক সংবাদপত্রের সংখ্যা কম হলেও দিনে দিনে এর পরিমাণ বাড়ছে। বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন ভিত্তিক সংবাদপত্র হলো ‘বিডি নিউজ-২৪’। ২০০৫ সালে এটি অনলাইনে আসে।
অনলাইন সাংবাদিকতার বৈশিষ্ট্য-
১. তাৎক্ষণিকতা:যে কোনো ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গেই রেডিও টিভির মতো এতে প্রকাশ করা যায়। আবার মেইলে খবরের আপডেট পাঠানোরও সুবিধা আছে। গুগল ফিডবার্নারসহ বিভিন্নভাবে এটা করা সম্ভব। আজ সকালে ঘটে যাওয়া খবরটি কাগজের পত্রিকার পাঠকেরা পাবেন পরদিন সকালে। আর অনলাইনের পাঠকেরা ঘটনা ঘটার কয়েক মিনিটের মধ্যেই তা পাবেন।
• ২. স্থায়িত্ব:অনলাইনে প্রকাশিত রিপোর্টের স্থায়িত্ব অনেক বেশি। প্রকাশিত রিপোর্টগুলো আর্কাইভ করে রাখার ব্যবস্থা থাকায় তা যে কোনো সময় দেখা যায়। অন্য যে কোনো মিডিয়ার (প্রিন্ট, রেডিও ও টিভি) চেয়ে এটা খুঁজে বের করা অনেক সহজ।
• ৩. উপভোগ্য:অনলাইন সংবাদপত্রে লেখার পাশাপাশি গ্রাফিক্স, অডিও, গান, ভিডিও ফুটেজ ও অ্যানিমেশন সংযুক্ত করা সম্ভব। ফলে এটা উপভোগ্য হয়ে ওঠে।
• ৪. ইন্টার-অ্যাকটিভ (interactive)অনলাইন সাংবাদিকতা একটি ইন্টার-অ্যাকটিভ প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে পাঠকের মতামত জানা ও পাঠককে নিজের মতামত দ্বারা প্রভাবিত করার সুযোগ বিদ্যমান। এখানে একটি লেখার সঙ্গে একই বিষয়ের অন্যান্য লিংক প্রদান করা যায়। ফলে পাঠক খুব সহজেই একই বিষয়ে অন্যান্য লেখা সম্পর্কে জ্ঞানার্জন করতে পারে। তাছাড়া এতে লেখার সূত্র উল্লেখ করা যায় বিধায় পাঠক রিপোর্টের বা লেখার বস্তনিষ্ঠতা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারে।
• ৫. পূর্ণাঙ্গ, সমৃদ্ধ ও সর্বশেষ সংবাদ পরিবেশনাঅনলাইন সংবাদপত্রে জায়গার কোনো সমস্যা নেই। কিংবা রেডিও টিভির মতো সময়েরও সীমাবদ্ধতা নেই। ফলে একজন অনলাইন সাংবাদিক তার স্টোরিকে বিভিন্ন তথ্যে সমৃদ্ধ করে প্রকাশ করতে পারেন। আবার প্রিন্ট মিডিয়ায় একবার প্রকাশিত হয়ে গেলে তা আর সংশোধন করার সুযোগ থাকে না। কিন্তু অনলাইনে এ ধরনের সমস্যা নেই। এ জগতের সাংবাদিকরা ঘটনা ঘটার সঙ্গেই তা আপডেট করে দিতে পারেন।
• অনলাইনে অপেক্ষাকৃত কম জনবল দিয়ে, কম টাকা বিনিয়োগ করে একটি ভালো গণমাধ্যম করা যায়। কারণ এখানে ছাপাসংক্রান্ত জটিলতা ও ব্যয় নেই। একশ কোটি টাকার নিচে যেখানে মোটামুটিমানের সংবাদপত্র প্রকাশের চিন্তা করা যায় না সেখানে কয়েক কোটি টাকা ব্যয় করে ভালোমানের অনলাইন পত্রিকা করা যায়।
• অনলাইন সাংবাদিকতায় সবচেয়ে বড় প্রতিযোগিতা হলো কে কার আগে সংবাদ পরিবেশ করতে পারে। কার চেয়ে কত আকর্ষণীয়ভাবে উপস্থাপন করতে পারে। যারা সবার আগে সব খবর দিতে পারে তাদের সাইটেই ভিজিটর বেশি হয়। পাঠক ধরে রাখার জন্য অনলাইনে অনেক কৌশল করতে হয়। তবে তাৎক্ষণিকতার সঙ্গে বিশ্বাসযোগ্যতা জরুরি। অনলাইন সংবাদপত্র একবার বিশ্বাসযোগ্যতা হারালে সহজে তা ফেরাতে পারে না।






Related News

Comments are Closed