Main Menu

বিশ্ব শান্তিসূচকে ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

বিশ্ব শান্তিসূচকে ভারত, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানকে পেছনে ফেলে গত বছরের চেয়ে এক ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। বুধবার অস্ট্রেলিয়ার সিডনিভিত্তিক আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা ইনস্টিটিউট ফর ইকনোমিকস অ্যান্ড পিস ‘বৈশ্বিক শান্তি সূচক-২০১৬’ প্রকাশ করেছে।

এতে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক শান্তি সূচকে (জিপিআই) ১৬৩টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৮৩তম হলেও দক্ষিণ এশিয়ায় সবার ওপরে রয়েছে ভূটান (প্রথম), এরপরে রয়েছে নেপাল (২য়), এছাড়া তৃতীয় স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।

তবে বিশ্ব শান্তিসূচকে পাকিস্তান ১৫৩ এবং ভারত ১৪১ তম অবস্থানে উঠে এসেছে। দক্ষিণ এশিয়ায় ভারত পঞ্চম এবং পাকিস্তান ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে।

এর আগে, গত বছরও বিশ্বের ১৬২ দেশের শান্তিসূচকের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮৪তম। ইনস্টিটিউট ফর ইকনোমিকস অ্যান্ড পিস বলছে, দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশ ভূটান। বিশ্ব পরিসরে দেশটির অবস্থান ১৩তম। এরপর নেপাল ৭৮তম, তৃতীয় স্থানে বিশ্ব পরিসরে ৮৩তম স্থানে থাকা বাংলাদেশ। ২০১৩ সালে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১০৫তম।

এবছর সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশের খেতাব দখল করেছে আইসল্যান্ড (১ম)। এরপরেই রয়েছে ডেনমার্ক (২য়), অস্ট্রিয়া (৩য়), নিউজিল্যান্ড (৪র্থ), পর্তুগাল (৫ম), চেক রিপাবলিক (৬ষ্ঠ), সুইজারল্যাান্ড (৭ম), কানাডা (৮ম), জাপান (৯ম) ও স্লোভেনিয়া দশম স্থান দখল করেছে।

এছাড়া সবচেয়ে কম শান্তিপূর্ণ ১০ দেশের মধ্যে ১৬৩তম অবস্থানে এসেছে সিরিয়া। যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার ওপরে রয়েছে দক্ষিণ সুদান (১৬২তম), ইরাক (১৬১তম), আফগানিস্তান (১৬০তম), সোমালিয়া (১৫৯ তম), ইয়েমেন (১৫৮তম), সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক (১৫৭তম), ইউক্রেন (১৫৬তম), সুদান (১৫৫তম) ও লিবিয়া (১৫৪তম)

সমাজে বিদ্যমান সহিংসতা, হত্যা, বেসামরিক নাগরিকের হাতে অস্ত্র, অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব-সংঘাত, রাজনৈতিক অস্থিরতাসহ ২২টি বিষয় মূল্যায়ন করে ওই সূচক নির্ধারণ করেছে ইনস্টিটিউট ফর ইকনোমিকস অ্যান্ড পিস। এক্ষেত্রে সমাজে শান্তি ও নিরাপত্তা, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের দ্বন্দ্বের সঙ্গে সম্পৃক্তি এবং সন্ত্রাসী তৎপরতাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়।






Related News

Comments are Closed