Main Menu

সিসি ক্যামেরার ফুটেজে অভিজিতের ‘খুনি’

গত বছর একুশে বইমেলার সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হন লেখক-ব্লগার অভিজিৎ রায়। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, ঘটনার আগে এক ব্যক্তি তাকে অনুসরণ করছেন। পুলিশ বলছে, অনুসরণকারী ওই ব্যক্তিই অভিজিতের ‘খুনি’। রোববার রাজধানীর খিলগাঁওয়ে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তার মৃত্যু হয়েছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) রোববার ব্লগার অভিজিৎ হত্যা ঘটনার বিষয়ে একটি ফুটেজ প্রকাশ করে।

এ প্রসঙ্গে ডিএমপির জনসংযোগ শাখার উপ-কমিশনার (ডিসি) মাসুদুর রহমান বলেন, ‘সিসি ক্যামেরার ফুটেজে অভিজিতের খুনিকে দেখা গেছে। ওইদিন ঘটনাস্থলে এক ব্যক্তি অভিজিৎ ও তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যাকে অনুসরণ করে। অনুসরণকারী ওই ব্যক্তিই শরীফুল ওরফে সাকিব। রোববার রাজধানীর খিলগাঁওয়ে বন্দুকযুদ্ধে তার মৃত্যু হয়েছে।’

শরিফ নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন ‘আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের’ সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মাসুদুর রহমান বলেন, ‘সর্বশেষ যে ৬ জঙ্গিকে ধরতে পুরস্কার ঘোষণা করা হয়; শরিফ তাদের একজন। অভিজিৎ হত্যার মামলার মূল সন্দেহভাজন আসামিও সে। এছাড়া অন্য লেখক ও ব্লগার হত্যার সঙ্গে শরিফের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে।’

২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করা হয় অভিজিৎকে। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী অভিজিৎ বই মেলায় অংশ নিতে ওই মাসেই স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যাকে নিয়ে দেশে আসেন। দুর্বৃত্তদের হামলায় গুরুতর আতন হন রাফিদা আহমেদ।

অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের কয়েক মাস পর ওই হত্যার দায় স্বীকার করে বিবৃতি আসে আল-কায়েদার ভারতীয় উপমহাদেশ শাখা (একিউআইএস) নামে।






Related News

Comments are Closed