Main Menu

টাকা প্রয়োজন কিন্তু পথ জানা নেই শ্রীলেখার

টালিগঞ্জের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। সিনেমায় অভিনয় এবং রিয়েলিটি শো ‘মীরাক্কেল’র বিচারক হিসেবে এপার বাংলাতেও তিনি সমান জনপ্রিয়।

সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে শ্রীলেখা অভিনীত সিনেমা ‘ভাইরাস’। সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার ঘরানার এ সিনেমার গল্প সংক্রমণের। এই সংক্রমণ দেহের নয়, মনের। ভাইরাসের মতোই সংক্রমণ ঘটে অনুভূতির। তারপর তা গ্রাস করে নেয় মানুষের মন। সিনেমায় এই বিষয়টিই ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন নির্মাতা।

সিনেমাটি নিয়ে সম্প্রতি ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শ্রীলেখা বলেন, ‘পরিচালক সৌভিক সরকারের দ্বিতীয় সিনেমা এটা। প্রত্যেক পরিচালকের মধ্যেই একটা অটোবায়োগ্রাফিক্যাল এলিমেন্ট থাকে। সৌভিকেরও আছে। যেহেতু নতুন পরিচালক, তাই একটা প্রতিবন্ধকতা ছিল। ওকে অনেক বিষয়ে কম্প্রোমাইজ করতে হয়েছে। অসম্ভব দুঃসাহসিক কাজ করেছে সৌভিক। কনসেপ্টটা যেহেতু আলাদা সেহেতু আমার একটা চিন্তা ছিল যে, সিনেমাটা দর্শকরা কতখানি নেবেন। নাইজেলের সাথে এটা আমার প্রথম কাজ। বেশ ভালো অভিজ্ঞতা হলো।’

সাক্ষাৎকারে এ অভিনেত্রীর সংসারে নতুন কোনো সদস্যের আগমন ঘটবে কি না এমন এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘পুরুষ সদস্যের কথা যদি বলেন, তো সেটা হতেও পারে আবার নাও হতে পারে। আর হলেও সেটা কতদিনের জন্য তা বলতে পারব না। কতদিন আমাদের তাকে পছন্দ হবে সেটাও প্রশ্নের বিষয়। তবে হ্যাঁ, বিয়ের পরিকল্পনা নেই। আমার বাড়ির সব কর্মচারী এবং সদস্যই তো মহিলা। সুতরাং একটা মহিলাতান্ত্রিক পরিবেশে একজন পুরুষের মানিয়ে চলা কঠিন।’

নিজের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে শ্রীলেখা বলেন, ‘অনেক টাকা রোজগারের ইচ্ছে রয়েছে। তবে জানিনা সেটা কীভাবে করতে হয়। তবে যেদিন অনেক টাকা জমাবো, সেদিন এক বছর অভিনয় না করে আমার নিজের একটা সিনেমা পরিচালনা করতে চাই। জানিনা সেটা কবে হবে।’

শ্রীলেখা ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন শিলাদিত্যকে। তাদের ঘরে রয়েছে এক কন্যা সন্তান। দীর্ঘ দিনের সংসার জীবনের পর মানসিক দ্বন্দ্বের কারণে মেয়েকে নিয়ে আলাদা থাকছেন শ্রীলেখা।






Related News

Comments are Closed