Main Menu

রিও অলিম্পিকে ড. ইউনূসের সঙ্গে টেন্ডুলকারের সাক্ষাৎ

ব্রাজিলের রিও-তে শান্তিতে নোবেল জয়ী প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস ও ক্রিকেট কিংবদন্তী শচীন টেন্ডুলকারের মধ্যে সাক্ষাৎ হয়েছে। দু’জনই এ সময় স্টেডিয়ামের ভিআইপি বক্সে বসে অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখছিলেন।

দু’জনেই তারা বহু বছর ধরে একে অপরের কতটা গুণগ্রাহী তা নিয়ে কথা বলেন। আলাপকালে প্রফেসর ইউনূস শচীন টেন্ডুলকারকে বলেন যে, তিনি (টেন্ডুলকার) ঢাকার যে স্টেডিয়ামে তাঁর অনবদ্য শততম সেঞ্চুরির রেকর্ডটি করেন সেটা গ্রামীণ ব্যাংক ভবনের একেবারেই কাছে। টেন্ডুলকার আনন্দের সাথে উপলক্ষটি স্মরণ করেন; তাঁর জীবনের শ্রেষ্ঠতম অর্জনগুলোর একটি সেটি।

আলাপের এক পর্যায়ে প্রফেসর ইউনূস জানতে চান, টেন্ডুলকার তার গৌরবময় ক্রিকেট ক্যারিয়ারের শেষে কী করতে চান। টেন্ডুলকার বলেন যে, তিনি সামাজিক কাজে আত্মনিয়োগ করার চেষ্টা করবেন।

ইউনূস বলেন যে, টেন্ডুলকার একটি প্রবল সামাজিক শক্তি। ক্রিকেট প্রিয় দেশগুলোতে সব বয়সী কোটি কোটি মানুষের কাছে টেন্ডুলকার একটি বিরাট প্রেরণা। প্রফেসর ইউনূস সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের জীবনমান উন্নয়নে টেন্ডুলকারকে তাঁর এই শক্তি ব্যবহার করতে বলেন।

টেন্ডুলকারের ম্যানেজার নারায়ণ বলেন যে, তিনি বহু বছর আগে প্রফেসর ইউনূসের বই পড়েছিলেন এবং সৃষ্টিশীল শক্তিকে সম্পূর্ণ অপ্রচলিত কিন্তু সফল উপায়ে সমাজের কল্যাণে ব্যবহারের ঘটনায় অত্যন্ত উদ্দীপ্ত হয়েছিলেন।

প্রফেসর ইউনূস শচীন টেন্ডুলকারকে এবছরের ১৮-১৯ নভেম্বর মুম্বাইতে অনুষ্ঠেয় সোশ্যাল বিজনেস কান্ট্রি ফোরাম, ভারতের এবং ২০১৭ সালের ২৮-২৯ জুন ঢাকায় অনুষ্ঠেয় সোশ্যাল বিজনেস ডে’তে যোগদানের এবং একই সাথে বাংলাদেশে বহু বছর ধরে গড়ে তোলা বিভিন্ন সামাজিক ব্যবসা পরিদর্শনের আমন্ত্রণ জানান।

টেন্ডুলকার ভারত ও বাংলাদেশে সামাজিক ব্যবসা অনুষ্ঠানগুলো সম্পর্কে গভীর আগ্রহ দেখান। তিনি সামাজিক ব্যবসা সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানার এবং ভারতে সামাজিক ব্যবসার তত্ত্ব ও চর্চার প্রসারে প্রফেসর ইউনূসের সাথে একসঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

শচীন টেন্ডুলকার বাংলাদেশের ক্রিকেট যেভাবে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে তার ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বিশেষভাবে সাকিব আল হাসানের ক্রিকেট নৈপুণ্যের প্রশংসা করেন। বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সম্পর্কে তিনি খুবই ইতিবাচক মন্তব্য করেন এবং তাদের চমৎকার পারফরমেন্সকে আরো এগিয়ে নিতে তিনি তাদেরকে সেরা আন্তর্জাতিক টিমগুলোর সাথে আরো বেশি করে খেলতে উৎসাহিত করেন।






Related News

Comments are Closed