Main Menu

বাংলাদেশের নতুন বোলিং কোচ ওয়ালশ

নতুন বোলিং কোচ কে?- গত মাস দুয়েক বাংলাদেশের ক্রিকেট আঙিনায় সবচেয়ে বেশি উচ্চারিত প্রশ্ন সম্ভবত এটিই। সংবাদ সম্মেলনগুলোয় এটি ছিল নিয়মিত প্রসঙ্গ।

বিসিবি কর্তারাও রহস্য করে আসছিলেন বরাবর। তবে গত কিছু দিনে অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল এর উত্তর। বাকি ছিল আনুষ্ঠানিক ঘোষণার। সেটিও হলে গেল। বাংলাদেশ জাতীয় দলের নতুন বোলিং কোচ ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি কোর্টনি ওয়ালশ।

বিসিবি আনুষ্ঠানিকভাবে জানানোর আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডই বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছে খবরটি। ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ পর্যন্ত মাশরাফিদের সঙ্গে থাকবেন ওয়ালশ। বাংলাদেশের দায়িত্ব নেওয়ার আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের অন্যতম নির্বাচক ছিলেন তিনি। নির্বাচক হিসেবে সাবেক এই ফাস্ট বোলারের দুই বছরের চুক্তি শেষ হয়েছে গত মাসে।

আগের বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিক গত মে মাসের শেষ দিকে জানিয়ে দেন, চুক্তি নবায়ন করছেন না। তার পর থেকেই বোলিং কোচের সন্ধানে ছিল বিসিবি। বিভিন্ন সময়ে গুঞ্জনে ছিল বেশ কটি নাম। চামিন্ডা ভাস আর আকিব জাভেদ দিয়ে শুরু। এরপর ওয়ালশের সঙ্গে বাতাসে ভেসেছে কার্টলি অ্যামব্রোস, ওটিস গিবসন, অ্যালান ডোনাল্ডের নাম। শেষ পর্যন্ত চূড়ান্ত হলেন ওয়ালশ।

বোলিং কোচ হিসেবে ৫৪ ছুঁইছুঁই ওয়ালশের এটিই প্রথম দায়িত্ব। ক্রিকেট ক্যারিয়ার শেষ হওয়ার পর নানা সময়ে কোনো সিরিজের আগে টুকটাক কিছু সময় কাটিয়েছেন ক্যারিবিয়ান বোলারদের সঙ্গে। কিছু দিন ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ম্যানেজার। সিপিএলে ছিলেন জ্যামাইকা তালাওয়াহসের মেন্টর। নির্বাচক হওয়ার আগে এক সময় ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের ক্রিকেট কমিটিতে।

কোচিংয়ের অভিজ্ঞতা খুব বেশি না থাকলেও ক্রিকেট ক্যারিয়ার তার দারুণ সমৃদ্ধ। খেলাটির সব সময়ের সেরাদের একজন তিনি। কার্টলি অ্যামব্রোসের সঙ্গে ওয়ালশের বোলিং জুটি বিশ্ব ক্রিকেটে কিংবদন্তি হয়ে আছে। অ্যামব্রোস-মার্শাল-হোল্ডিংদের মত সহজাত প্রতিভাবান ছিলেন না, তবে সেটা জয় করেছিলেন স্থায়িত্ব, ধৈর্য্য, স্কিল আর ধূর্ততা দিয়ে। ব্যাটসম্যানের দুর্বলতা দ্রুত বুঝে আঘাত করতে পারতে সেখানে।

এক সময় ছিলেন টেস্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। টেস্ট ইতিহাসে ৫০০ উইকেট স্পর্শ করা প্রথম বোলার তিনিই। প্রায় ১৭ বছরের ক্যারিয়ারে ১৩২ টেস্টে নিয়েছেন ৫১৯ উইকেট। ২০৫ ওয়ানডেতে উইকেট ২২৭টি। দারুণ সফল ছিলেন কাউন্টি ক্রিকেটেও। গ্লস্টারশায়ারে ১৪ বছর খেলেছেন, ১৮৪ ম্যাচে উইকেট ৮৬৯ টি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সব মিলিয়ে উইকেট ১ হাজার ৮০৭টি।

তার এই দীর্ঘ অভিজ্ঞতার আলোয় এবার বাংলাদেশ ক্রিকেটের আলোকিত হওয়ার পালা।






Related News

Comments are Closed