Main Menu

কেবিনে দেয়া হচ্ছে খাদিজাকে

রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছাত্রলীগ নেতার হামলার শিকার সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে দু-তিন দিনের মধ্যে কেবিনে দেয়া হতে পারে। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে স্কয়ার হাসপাতালে এসব তথ্য জানান নার্গিসের বাবা মাসুক মিয়া।

চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে মাসুক মিয়া জানান, আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে নার্গিসকে কেবিনে দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সে কথা বলতে পারছে না। ডাক দিলে তাকিয়ে থাকে। চিকিৎসকরা জানিয়েছে, কথা বলতে সময় লাগবে।

তিনি আরো জানান, শনিবার সকালে নার্গিসকে কিছু সময় হুইল চেয়ারে বসিয়ে ঘুরানো হয়েছে। এরপর তাকে জেলি, কেক, পানি ও জুস খাওয়ানো হয়। স্কয়ার হাসপাতালের মেডিসিন অ্যান্ড ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিভাগের সহযোগী পরিচালক ডা. মির্জা নাজিম উদ্দিন বলেন, নার্গিস প্রতিদিন একটু একটু করে সুস্থ হয়ে উঠছে। তবে তার মাথায় আঘাত গুরুতর, তাই কথা বলা সময়ের ব্যাপার।

উল্লেখ্য, গত ৩ অক্টোবর বিকেলে এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী খাদিজাকে কুপিয়ে জখম করে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সহসম্পাদক বদরুল আলম। পরে কলেজের শিক্ষার্থীরা এগিয়ে এসে তাকে পিটুনি দিয়ে পুলিশে দেয়।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পর রাতে প্রথম দফায় অস্ত্রোপচার হয় খাদিজার। চিকিৎসকদের পরামর্শে রাতেই অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় আনার পর তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। খাদিজার গ্রামের বাড়ি সিলেট সদর উপজেলার মোঘলগাঁও ইউনিয়নের হাউসায়। তিন ভাইয়ের একমাত্র বোন তিনি।






Related News

Comments are Closed