Main Menu

খাদিজার সুস্থ হয়ে ওঠার অপেক্ষা

স্কয়ার হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসাধীন খাদিজা বেগম নার্গিসের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। অচেতন খাদিজা ভেন্টিলেটর মেশিনের সাহায্যে কৃত্রিমভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছেন। হাসপাতালের ইন্টারনাল মেডিসিন অ্যান্ড ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিভাগের পরিচালক ডা. মীর্জা নাজিম উদ্দিন বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন, চিকিৎসকরা খাদিজাকে বাঁচিয়ে রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন। লাইফ সাপোর্টে থাকা খাদিজার মাথায় মঙ্গলবার বিকালে অস্ত্রোপচার করা হয়। তারপর থেকে তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি বা অবনতি কোনোটিই হয়নি। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি বা উন্নতি সম্পর্কে নিশ্চিত হতে শনিবার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

বৃহস্পতিবার সৌদি আরব থেকে দেশে এসেছেন খাদিজার বাবা মাসুক মিয়া ও ভাই শাহিন আহমেদ। মেয়ের পাশি দাঁড়িয়ে বাবা চেয়েছেন দেশবাসীর কাছে দোয়া। সেই সঙ্গে বদরুল আলমের বিচার চেয়েছেন দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে। এজন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন মাসুক মিয়া।

বদরুলের ফাঁসির দাবিতে বৃহস্পতিবারও বিক্ষোভ আর স্লোগানে উত্তাল ছিল সিলেট মহানগরী। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বিভিন্ন সংগঠনও বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে। সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা চার দফা দাবি জানিয়ে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে এদিন। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মো. আমিনুর রহমান ওই স্মারকলিপি গ্রহণ করেন। এ সময় দাবি পূরণে পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত (১০ দিনের জন্য) আন্দোলন স্থগিত করেন। তবে এর আগে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র ফজিলাতুন্নেসাকে হত্যার হুমকি দেয় অজ্ঞাত ব্যক্তি/সংগঠন। ফজিলাতুন্নেসা যখন নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন আন্দোলনে, তখন তার মায়ের মোবাইলে অপরিচিত নম্বর থেকে ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়ে ওই হুমকি দেয়া হয়। বলা হয়, আন্দোলন থেকে সরে না দাঁড়ালে ফজিলাতুন্নেসাকেও খাদিজার মতো কোপানো হবে। এরপর থেকেই আতংকে রয়েছে তার পরিবার।

বৃহস্পতিবারও মন্ত্রী-এমপিসহ বিভিন্ন ব্যক্তি খাদিজাকে দেখতে হাসপাতালে যান। স্কয়ারে আসেন সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ নুরুল ইসলামও। তিনি বলেন, বদরুলের উপযুক্ত বিচার করলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে জমে থাকা উদ্বেগ কমবে। এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেন না ঘটে সেজন্যও দোষীর উপযুক্ত বিচার দাবি করেন তিনি। সিলেটে খাদিজার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেছেন জেলা ও মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের নেতারা। তাদের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন তারা।

এদিকে রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানেও বদরুলের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ হয়েছে। ঢাকায় জাতীয়তাবাদী মহিলা দল ও কয়েকটি সংগঠন বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে।






Related News

Comments are Closed