Main Menu

মেসির নৈপুন্যে বার্সেলোনার দারুণ জয়

শুধু নিজে করেননি, লুই সুয়ারেসকে দিয়ে করেছিলেন আরেকটি গোল। তাতে সেভিয়ার বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও ২-১ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা।

এস্তাদিও রামোন সানচেস পিজুয়ানে মঞ্চায়িত হয়েছে দুর্দান্ত এক ম্যাচ। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে ব্যস্ত থেকেছে দুই দল। প্রথমার্ধে অবশ্য সেভিয়ার দাপটই ছিল বেশি। নতুন কোচ হোর্হে সাম্পাওলির ছোঁয়ায় তাদের বদলে যাওয়ার দৃশ্য আগেই চোখে পড়েছিল ফুটবল বিশ্বের, সেটা আরও স্পষ্ট হয়েছে বার্সেলোনার মতো কঠিন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে অসাধারণ পারফরম্যান্সে। শুরু থেকে সফরকারীদের ওপর আক্রমণ চালানো সেভিয়ার এগিয়ে যেতে সময় লাগেনি বেশি। ১৫তম মিনিটে পিজুয়ানে আনন্দের ঢেউ তোলেন ভিতোলো। প্রতি আক্রমণ থেকে দেখার মতো এক গোল করেছেন তিনি। অবশ্য গোলটার জন্য সেভিয়া সমর্থকদের কাছে ‘ধন্যবাদ’ পাবেন বার্সেলোনা লেফটব্যাক সের্হিয়ো রবার্তো! এই স্প্যানিয়ার্ডের ভুলেই তো এগিয়ে যায় সেভিয়া।

ম্যাচে ফেরার জন্য বার্সেলোনা মরিয়া হয়ে উঠলেও আক্রমণ চালানো বাদ দেয়নি সেভিয়া। সেটাই সম্ভবত কাল হয়ে দাঁড়িয়েছিল তাদের জন্য। আক্রমণ চালাতে গিয়েই তো ৪৩ মিনিটে প্রতি আক্রমণে মেসির আঘাতের শিকার হয় তারা। নিজেদের অর্ধ থেকে মেসির কাছ থেকে বল পেয়েছিলেন দেনিস সুয়ারেস, স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার পাস বাড়ান নেইমারকে। ব্রাজিলিয়ান তারকা খানিকটা এগিয়েই বল বাড়িয়ে দেন ফাঁকায় থাকা মেসিকে, আর আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড বাঁ পায়ের ছোঁয়ায় করলেন তার স্বভাবসুলভ লক্ষ্যভেদ।

দ্বিতীয়ার্ধে বদলে যায় খেলার ধরণ। প্রথমার্ধে ঘুমিয়ে থাকা বার্সেলোনা জেগে উঠে চড়াও হয় সেভিয়ার ওপর। বিরতি থেকে ঘুরে আসার পর দুই দলই সুযোগ পেয়েছিল এগিয়ে যাওয়ার। যদিও সেগুলো কাজে লাগাতে পারেনি কোনও দলই। অবশেষে ৬১ মিনিটে সফল হন সুয়ারেস। মেসির বুদ্ধিদীপ্ত পাস ধরে বক্সের ভেতর থেকে লক্ষ্যভেদ করেন উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার। ২-১ গোলে এগিয়ে যাওয়া বার্সেলোনা ব্যবধান আরও বাড়াতে পারতো, যদি সুয়ারেসের শট অবিশ্বাস্যভাবে না ঠেকাতেন সেভিয়া গোলরক্ষক সের্হিয়ো রিকো। সুযোগ নষ্ট করেছেন মেসিও, আর নেইমার তো ওয়ান টু ওয়ানে বল তুলে দিয়েছেন রিকোর হাতে!

ব্যবধান না বাড়লেও শেষ পর্যন্ত কঠিন পরীক্ষা নেওয়া সেভিয়ার মাঠ থেকে পুরো ৩ পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পারাটাই স্বস্তি বার্সেলোনার জন্য। লা লিগার পয়েন্ট টেবিলে অবশ্য দ্বিতীয় স্থানেই থাকতে হলো তাদের (২৫ পয়েন্ট)। ২ পয়েন্ট বেশি নিয়ে শীর্ষে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ।






Related News

Comments are Closed