Main Menu

বিয়ের পাঁচ দিন পর নতুন বউয়ের ছিন্নভিন্ন লাশ

প্রিয়াঙ্কা গৌরবের (২৪) হারিয়ে যাওয়ার দিনটি ছিল ৫ মে। এর মাত্র পাঁচ দিন আগে বিয়ে হয়েছিল তাঁর। ভারতের মুম্বাইয়ের ওরলিতে স্বামীও শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে থাকতেন প্রিয়াঙ্কা। গত সপ্তাহে বাড়ি থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে মুম্বাইয়ের নাভিতে একটি নালার মধ্যে প্রিয়াঙ্কার ছিন্নভিন্ন লাশটি পাওয়া যায়।

এনডিটিভির খবরে জানা যায়, গতকাল সোমবার থানের পূর্ব উপকূলে সাহাপুর-নাসিক সড়কের কাছে একটি বন থেকে প্রিয়াঙ্কার মাথা উদ্ধার করা হয়। প্লাস্টিকের একটি ব্যাগ ও বিছানার চাদর দিয়ে মাথাটি মোড়ানো ছিল। প্রিয়াঙ্কার কাঁধে গণেশ দেবতার ট্যাটু ও ওম চিহ্ন আঁকা ছিল। এগুলো দেখেই তাঁকে শনাক্ত করা যায়।

পুলিশ প্রিয়াঙ্কার স্বামী সিদ্ধেশ গৌরব ও তাঁর মা-বাবাকে গ্রেফতার করেছে। সিদ্ধেশের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি স্ত্রীকে হত্যা করেছেন এবং খুনের প্রমাণ লোপাট করেছেন। প্রিয়াঙ্কার লাশ ছিন্নভিন্ন করার কাজে সহায়তা করার অভিযোগে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, যে গাড়িতে করে প্রিয়াঙ্কার লাশের বিভিন্ন অংশ ছড়িয়ে রাখা হয়েছিল, সেটি খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।

দায়িত্বপ্রাপ্ত এক পুলিশ কর্মকর্তা এনডিটিভিকে বলেন, মেয়েটির লাশ ফেলে রেখে যাওয়ার কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্লাস্টিকের ব্যাগে করে যেখানে মেয়েটির মাথা ফেলে রাখা হয়েছিল, সেখান থেকেই ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। মাথাটি বিছানার চাদর ও প্লাস্টিকের ব্যাগে মোড়ানো ছিল।






Related News

Comments are Closed