Main Menu

লঞ্চের কেবিনে গর্ভবতী নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা

চাঁদপুর লঞ্চঘাটে যাত্রীবাহী লঞ্চ এমভি আব-এ-জমজম-১ এর স্টাফ কেবিন থেকে অন্তঃস্বত্ত্বা অজ্ঞাতনামা এক নারীর (২২) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৭ জুন) বিকেল তিনটার দিকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ ওই লঞ্চের ম্যানেজারসহ ৫ জনকে আটক করেছে। আটকরা হলেন- লঞ্চের ম্যানেজার ইউনুস মিয়া (৩৫), কেরানী ফরহাদ হোসেন (২৭), কেবিনবয় রিয়াদ হোসেন (২৩), সুজন প্রামানিক (২৪) ও সোহাগ খান (৩০)।

লঞ্চের ম্যানেজর ইউনুছ মিয়া জানান, হাইমচর নীলকমল ঘাট থেকে সোমবার (৬ জুন) রাত ৮ টায় একজন পুরুষসহ এ নারী লঞ্চে উঠে ১১২নং কেবিন বুকিং করেন। ঢাকায় লঞ্চটি ভিড়ার পর কেবিন বয়দের অগোচরে পুরুষটি নেমে গেলেও এ নারী কেবিনেই থেকে যায়। ঢাকা থেকে লঞ্চটি চাঁদপুর আসার পর ওই কেবিনে নারীর লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়া হয়। লঞ্চ চাঁদপুর ঘাটে পৌঁছার পর পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ওয়ালী উল্যাহ অলি ও সেকেন্ড অফিসার মনির আহমেদ লাশটি উদ্ধার ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক ব্যক্তিদের থানায় নিয়ে আসেন।

এসময় ওসি ওয়ালী উল্ল্যাহ ওলি জানান, অজ্ঞাতনামা নারী অন্তঃস্বত্ত্বা। ধারণা করা হচ্ছে তাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তদন্ত চলছে।






Related News

Comments are Closed